জেনে নিন টুইটার একাউন্ট খোলার নিয়ম

জেনে নিন টুইটার একাউন্ট খোলার নিয়ম


জনপ্রিয় সব সোশ্যাল মিডিয়া মাধ্যমগুলোর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে টুইটার (Twitter)। ফেসবুকের মতই প্রচুর মানুষ এখানে প্রতিনিয়ত সক্রিয় থাকছে। এটি একটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম।


ফেসবুক ব্যবহার করে যেমন আমরা সহজেই এক দেশে থেকে অন্য দেশের লোকের সাথে সংযুক্ত হতে পারি ঠিক তেমন টুইটার এর সাহায্যে আমরা খুব সহজে যেকোনো মানুষের সাথে যুক্ত হতে পারি।


এখানে আমরা আমাদের ইচ্ছামতো টুইট, রিটুইট করতে পারি। সময়ের সাথে সাথে টুইটার ব্যবহারকারীর সংখ্যাও বেশ বাড়ছে।


মজার বিষয় হচ্ছে ফেসবুকে আপনি অসংখ্য ফেক প্রোফাইল বা অ্যাকাউন্ট পেয়ে যাবেন, কিন্তু টুইটারে এমনটা না। এখানে আমি ফেক অ্যাকাউন্ট পাবেন না। দেশ বিদেশের বড় বড় রাজনীতিবিদ, অভিনেতা, সেলিব্রিটি সহ বিখ্যাত লোকেদের টুইটারে অ্যাকাউন্ট রয়েছে।


তাদের মাঝে আপনিও টুইটারে একটি অ্যাকাউন্ট বানিয়ে সংযুক্ত হয়ে যেতে পারেন পাশাপাশি নিজের মনের ভাব, অনুভূতি শেয়ার করতে পারেন সবার মাঝে।


প্রতিনিয়ত গুগলে সার্চ হচ্ছে যে কিভাবে টুইটার একাউন্ট খুলবো? টুইটার অ্যাকাউন্ট খুলে সঠিক নিয়ম ইত্যাদি।


তবে আজকের আর্টিকেলে আমি আপনাদের জন্য টুইটার একাউন্ট খুলার A-Z নিয়ম সম্পর্কে বলবো। তাই মনোযোগ সহকারে পুরো আর্টিকেলটা পড়বেন। তো চলুন শুরু করা যাক।


কিভাবে টুইটার অ্যাকাউন্ট খুলবেন?


(How to Create A Twitter account?)


মোবাইল দিয়ে যেভাবে টুইটার অ্যাকাউন্ট তৈরি করবেন:

মোবাইল দিয়ে খুব সহজে মাত্র কয়েক মিনিটে একটি Twitter account বানিয়ে ফেলা যায়। তবে এর জন্য আপনার প্রয়োজন হবে:

একটি ইমেইল আইডি অথবা মোবাইল নম্বর


ইন্টারনেট সংযোগ


এগুলো আপনার থেকে থাকলে, চলুন টুইটারে একটি অ্যাকাউন্ট বানিয়ে নেওয়া যাক।


আপনার মোবাইল ফোন এর যেকোনো একটি ব্রাউজারে গিয়ে সার্চ করুন Twitter.com লিখে, সার্চ করলেই পেয়ে যাবেন টুইটারের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট।


স্টেপ ১- টুইটার ওয়েবসাইটে প্রবেশ করলে আপনি দুটি অপসন দেখতে পেয়ে যাবেন।

Sign Up


Log In


প্রথম অবস্থায় নতুন অ্যাকাউন্ট বানানোর জন্য আমাদের Sign up অপশনে ক্লিক করতে হবে।

স্টেপ ২- দ্বিতীয় পেজে আপনাকে একটি ফ্রম দেওয়া হবে, যেখানে আপনার কিছু তথ্য দিতে হবে।

Name: 'Name' এর জায়গাতে আপনার সঠিক নামটি দিন।


Email Or Phone: এই জায়গাতে আপনার একটি ইমেইল আইডি অথবা ফোন নম্বর দিন।


স্টেপ ৩- এখন আপনারা "customize your experience" অপসন টি দেখতে পাবেন, এর নিচেই Next অপসন থাকবে সেখানে ক্লিক করুন।


স্টেপ ৪- সর্বশেষ এখন আপনাকে টুইটার থেকে আপনার তথ্য গুলো দেখানো হবে, যদি সব সঠিক ঘাকে হবে Sign up বাটনে ক্লিক করুন।


স্টেপ ৫- এখন আমরা যে মোবাইল নম্বর অথবা ইমেইল আইডি দিয়েছি সেটিকে আমাদের Verification করতে হবে।


যদি আপনি ইমেইল দিয়ে থাকেন তাহলে আপনার সামনে 'Verify Email' অপসন থাকবে, আর ফোন নম্বর দিলে 'Verify Phone' অপসন থাকবে।


Ok বাটন ক্লিক করলেই আপনার দেওয়া মোবাইল নম্বর অথবা ইমেইল আইডিতে একটি কোড পাঠানো হবে টুইটার থেকে।


এবার আপনার মোবাইল নম্বরে বা ইমেইল আইডিতে আসা verification code ভেরিফাই কোড বক্সে দিয়ে Next তে ক্লিক করুন। কোডটি সঠিক থাকলে আপনাকে পরের ইন্টারফেসে নিয়ে যাওয়া হবে।


স্টেপ ৬- এখন আপনাকে একটি শক্তিশালী পাসওয়ার্ড দিতে হবে। শক্তিশালী পাসওয়ার্ড দেওয়ার ক্ষেত্রে মাথায় রাখবেন:


পাসওয়ার্ড কখনো নিজের নাম দিয়ে ব্যবহার করবেন না।


আপনার পাসওয়ার্ডটিতে অবশ্যই সংখ্যা ব্যবহার করবেন।


পাসওয়ার্ডটি আরো বেশি শক্তিশালী করতে কিছু স্পেশাল নম্বর সাইন যেমন (₹,&,@,$..) ব্যবহার করুন।


নিজের পাসওয়ার্ডটি কারো সাথে শেয়ার করবেন না।


নোট: পাসওয়ার্ডটি শক্তিশালী ও ইউনিক করে দিন।অনকে ভাবে যে পাসওয়ার্ড কেনো এতো শক্তিশালী করা দরকার? দেখুন আপনি যদি একটি শক্তিশালী পাসওয়ার্ড আপনার একাউন্টে ব্যবহার না করেন তাহলে আপনার অ্যাকাউন্টটি হ্যাক হওয়ার সুযোগ থাকে। তাই অ্যাকাউন্ট নিরাপত্তা সার্থে একটি শক্তিশালী পাসওয়ার্ড দিন।

পাসওয়ার্ড দেওয়া হলে next বাটনে ক্লিক করুন। পাসওয়ার্ড দেওয়া হলে আপনার আইডি হয়ে যাবে। তবে অ্যাকাউন্ট বানানোর পর যে কাজগুলো করবেন সেগুলো হলো:

১) Profile Picture: নিজের একটি ভালো মানের প্রোফাইল ছবি আপলোড করুন। চেষ্টা করুন ছবিটি যেনো ভালো রেগুলেশন এর হয়। নিজের ছবি প্রোফাইলে দিলে সবাই সহজে আপনাকে চিনে নিতে পারবে, এবং আপনার ফলোয়ার ও বাড়বে।


২) Set your bio: bio তে আপনার সম্পর্কে সংক্ষেপে কয়েক লাইন লিখে দিন। এতে কেও আপনার প্রোফাইল ভিজিট করলে আপনার সম্পর্কে জানতে পারবে।


৩)Select your Language: এই অপশনে আপনি আপনার কাঙ্খিত ভাষাটি বেছে নিতে পারবেন।


আপনার একাউন্ট তৈরি কাজ সম্পূর্ণ সাথে আপনার প্রোফাইল সাজানো হয়েছে।


তবে প্রতিনিয়ত অনেক ধরনের আপডেট টুইটারে আসে তাই sign up ইন্টারফেস হয়তো আপডেট হতে পারে।


যদি কারো টুইটারের প্রথম পেজে 'sign up with google' অপসন থাকে সেক্ষেত্রে সেখানে ক্লিক করে সরাসরি আপনার জিমেইল আইডি সিলেক্ট করে অ্যাকাউন্ট বানিয়ে নিতে পারবেন।


এছাড়াও টুইটার একইভাবে টুইটার এর মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করে সেটি দিয়েও আপনারা এই সিস্টেমে একটি অ্যাকাউন্ট সহজেই বানিয়ে নিতে পারবেন।


তবে টুইটার একাউন্ট তো আমরা বানিয়ে ফেললাম, কিন্তু টুইটার কি শুধুমাত্র টুইট করা কিংবা ফলো করা বা যোগাযোগ করার মাধ্যম? এটির আর কোনো গুন কি নেই? অবশ্যই আছে।


টুইটার অ্যাকাউন্ট আপনার অনেক কাজে আসতে পারে। চলুন সেই উপকারিতা সম্পর্কে জানা যাক:


১. আপনার যদি কোনো ব্যাবসা (Business) থাকে, কিংবা কোনো Website, Product, বা service থাকে তাহলে আপনি আপনার একাউন্ট এর মাধ্যমে সেটির বিজ্ঞাপন প্রচার করতে পারবেন দেশের যেকোনো জায়গাতে।


আপনার কেনো প্রোডাক্ট অথবা সার্ভিস এর মার্কেটিং করতে পারবেন টুইটারের মাধ্যমে। বর্তমানে অধিকাংশ ব্যাবসায়ী ও ওয়েবসাইটের মালিকরা টুইটার ব্যবহার করে তাদের ব্যাবসায়ের প্রচার এর কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।


২.টুইটারে আপনি Tweet (টুইট) করার মাধ্যমে আপনার মনের ভাব, বক্তব্য সবার মাঝে উপস্থাপন করতে পারবেন।


৩. আপনার পছন্দের যেকোনো অভিনেতা কিংবা ব্যক্তির সাথে সংযুক্ত থাকতে পারবেন টুইটারের মাধ্যমে। তাদের সমস্ত আপডেট, ছবি, ভিডিও সহজেই দেখতে করবেন আপনি।


৪.টুইটারে আপনি যেকারো সাথে বন্ধুত্ব করতে পারবেন, এখানে আরও রয়েছে মেসেজিং  এর সুবিধা ।


৫.সকল ধরনের দেশি/ bidesi নিউজ বা আপডেট টুইটারে আপনি একবার আগে পেয়ে যাবেন।


৬.বর্তমানে টুইটারে Paid Marketing এর চাহিদা অনেক। এছাড়া কনেকে এটির সাথে জড়িত রয়েছে। পেইড মার্কেটিং করে বর্তমানে প্রচুর মানুষ টুইটারের মাধ্যমে ইনকাম করে যাচ্ছে।


এছাড়াও টুইটার মার্কেটিং এর চাহিদাও বর্তমানে কম নয়। ব্যাবসায়িক সকল কার্যক্রম টুইটারের মাধ্যমে অনেক সহজে করা যাচ্ছে।


৭. আপনার যদি যেকোনো গুন থেকে থাকে টুইটারে আপনি সেগুলো সবার সাথে শেয়ার করতে পারবেন। দেশে বিদেশে সকল মানুষের কাছে আপনি আপনার টেলেন্ট কে শেয়ার করতে পারেন।


৮.ব্লগ বা ওয়েবসাইট যাদের আছে তাদের জন্য টুইটার অনেক সাহায্যকারী একটি সোশ্যাল মিডিয়া। ব্লগ বা ওয়েবসাইটের আর্টিকেল টুইটারে শেয়ার করার মাধ্যমে প্রচুর ট্রাফিক পাওয়ার সম্ভবনা থাকে।


আমাদের শেষ কথা


তাহলে বন্ধুরা আজকে আমরা টুইটার একাউন্ট বানানোর সঠিক নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে জেনে নিতে পারলাম। টুইটার শুধুমাত্র বিনোদনের মাধ্যম নয় এটি বর্তমানে অনেক সুযোগ সুবিধা আমাদের মাঝে এনে দিয়েছে।


বিনোদনের পাশাপাশি ভালো কিছু করতে চাইলে আপনি টুইটার একাউন্ট এর মাধ্যমে করতে পারবেন।


যদি অ্যাকাউন্ট বানাতে কোনো ধরনের সমস্যা হয় তাহলে অবশ্যই কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে জানাবেন। আজকের আর্টিকেল ছিল এই পর্যন্ত। ভালো লাগলে শেয়ার করে দিবেন অবশ্যই। আল্লাহ হাফেজ


আরো দেখুন 



একটি মন্তব্য পোস্ট করুন (0)
নবীনতর পূর্বতন

Musik

Bisnis